অনলাইন ইনকামের প্রফেশনাল মাধ্যম হচ্ছ ভিডিও (Video) তৈরি করে ইউটিউব চালানো

ইন্টারনেট আয়ের হাজারো পদ্ধতি থেকে অনলাইনে ইনকাম করার অন্যতম একটি মাধ্যম হলো ভিডিও (Video) তৈরী করা ৷ অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা ভিডিও তৈরী করার জন্য লোক নিয়োগ দিয়ে থাকে ৷ তাই ভিডিও ডেভেলপার হিসাবে চাকুরি করার সুযোগও রয়েছে।

 

How to make YouTube Channel. ইউটিউব চ্যালেন কিভাবে খুলবেন

ইন্টারনেটের চমৎকার ইনকাম ব্লগিং করে আয় করা – অনলাইন ইনকাম

ব্লগারদের জন্য গুগল এডসেন্স এর কয়েকটি সেরা বিকল্প

 

ভিডিও তৈরি কিংবা এডিটিং করে বাসায় বসে ইনকাম করতে পারেন আপনিও। এজন্য ভিডিও(Video) এডিটিং সফ্টওয়ারের ভাল দক্ষতা প্রয়োজন ৷ বিভিন্ন সোর্স থেকে ভিডিও ক্যাপসার করে তা এডিটিং করে প্রতিষ্ঠানের জন্য তৈরী করতে হয় ৷ এছাড়াও নিজে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরী করে সেখানে ভিডিও পোস্ট করে ইনকাম করতে পারেন লাইফ টাইম ৷ অনেকে এখন বিভিন্ন পাবলিক প্রগ্রাম ক্যাপসার করে নিজের ইউটিউব চ্যালেনে প্রকাশ করে হাজার হাজার ডলার আয় করছে ৷ আমরা লক্ষ করে দেখছি ইউটিউ এ তাফসীর মাহফীলগুলো এবং পাবলিক প্রগ্রামগুলো বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ৷

 

কিভাবে জিমেইল একাউন্ট খুলবো? How to make Gmail?

অনলাইন ইনকাম এবং প্রতারণা – online earning

 

ইউটিউব চ্যালেন থেকে আয় করতে হলে ইউটিউবের বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয় ৷ এ জন্য তাদের পলিসি দেখে নেওয়া অত্যান্ত জরুরী ৷ ইউটিউব কপিরাইট এলাও করে না ৷ অন্য কারো তৈরী করা ভিডিও যদি নিজের চ্যালেনে প্রকাশ করেন তাহলে চ্যালেনটি ইউটিউব কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দিতে পারে ৷ তাই কোন অবস্থাতেই কারো ভিডিও নিজের চ্যালেনে দিবেন না ৷

 

কিভাবে ভিডিও (Video) তৈরী করবো?

যদি পাবলিক প্রগ্রামগুলোর জন্য ইউটিউব চ্যালেন তৈরী করেন তাহলে ভিডিও ক্যামেরা বা মোবাইল দিয়ে ক্যাপসার করে ভিডিও এডিটিং সফ্টওয়ার দিয়ে তা সুন্দর করে সম্পাদনা করুন ৷ তারপর ইউটিউবে প্রকাশ করুন ৷ আপনার যদি কোন বিষয়ে বিশেষ দক্ষতা থাকে তাহলে সেই বিষয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরী করে চ্যালেন পরিচালনা করুন ৷ ধারাবাহিক ভিডিও প্রকাশ করলে চ্যালেনটি খুব তারাতারি জনপ্রিয় হয়ে উঠবে ৷ এতে চ্যালেন থেকে অনেক টাকা ইনকাম করার পথ সহজ হয়ে যাবে ৷

 

কিভাবে ইউটিউব চ্যালেন তৈরী করতে হয়? লিখে ইউটিউবে সার্চ দিন ৷ অনেক ভিডিও টিউটোরিয়াল পাবেন তা দেখে সুন্দর একটি ইউটিউব চ্যালেন তৈরী করুন ৷ নিয়মিত ভিডিও প্রকাশ করতে থাকুন ৷ চ্যালেনটি জনপ্রিয় করার জন্য ইন্টারনেট ঘাটাঘাটি করুন ৷

 

লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে ইউটিউব চ্যালেন তৈরী করেই ইনকাম করতে পারবেন না ৷ ইনকাম করার জন্য চ্যালেনটি জনপ্রিয় করতে হবে ৷ তারপর ইনকাম করতে পারবেন ৷ চ্যালেনটি যদি জনপ্রিয় করতে না পারেন তাহলে চ্যালেন দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন না ৷ কেননা আপনার চ্যালেনের ভিডিও যদি কেউ না দেখে তাহলে চ্যালেন থেকে এক টাকাও ইনকাম হবে না ৷ ভিডিও দেখার উপর নির্ভর করবে আপনার ইনকাম ৷ অর্থাৎ ইউটিউব চ্যানেলও একপ্রকার ব্লগিং করা।

 

ইউটিউব চ্যালেন থেকে কয়েক প্রকারে ইনকাম করা যায় ৷ যেমন-

**ইউটিউব পার্টনার হয়ে**

ইউটিউবের পার্টনার যদি নেন তাহলে ইউটিউব আপনাকে প্রতিমাসে দুইশত ডলার দিবে ৷ পার্টনার হওয়ার জন্য চ্যালেনটি ভালমানের হতে হবে ৷

 

**চ্যালেন/ভিডিও ভাড়া দিয়ে**

উন্নতমানের ভিডিও তৈরী করে ভাড়ায় চালাতে পারেন ৷ এতে প্রচুর টাকা ইনকাম হবে ৷

 

** প্রডাক্টের রিভিউ দিয়ে**

ভিডিও এর মধ্যে প্রডাক্টের রিভিউ দিয়ে অনেক টাকা ইনকাম করা যায় ৷ কোন প্রডাকস এর রিভিউ ভিডিও তৈরি করে ভিডিওটি বিক্রি, ভারা কিংবা নিজের ইউটিউব চ্যানেলে দিতে পারেন।

 

**এডসেন্স থেকে**

চ্যালেনের সাবসক্রাইবার যদি একহাজার এবং ভিউয়ার দশহাজার হয় লাস্ট বছরে  তাহলে ভিডিও এর মধ্যে এডসেন্সের এড দেখাতে পারবেন ৷ এটা বেশ জনপ্রিয় ৷ লোকজন ভিডিও দেখার সাথে এডও দেখবে এতে আপনার প্রচুর ইনকাম হবে ৷

 

ফেসবুক থেকে আয়

ফেসবুক পেজেও ভিডিও শেয়ার করে ইনকাম করা যায় ৷ ইউটিউবের মত ফেসবুকও ভিডিও থেকে ইনকাম করা সুযোগ দিচ্ছে এখন ৷ ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করতে চাইলে পেজের ফলোয়ার কমপক্ষে দশহাজার হতে হবে ৷ ফেসবুক পেজও জনপ্রিয় করতে হবে ৷ তা না হলে এখানেও ইনকাম শূণ্য হয়ে থাকবে ৷

 

যারা ভিডিও তৈরী করে ইনকাম করতে আগ্রহী তারা ইউটিউব চ্যালেনগুলো নিয়ে ঘাটাঘাটি করুন ৷ ভিডিও তৈরীতে বিশেষ দক্ষতা অর্জন করুন ৷ ইন্টারনেট ঘাটাঘাটি করে বিস্তারিত জানুন ৷ যদি চ্যালেন নাও চালান বা না তৈরী করেন তবে আউট সোর্সিং করে ইনকাম করতে পারবেন ৷

 

ভিডিও (video) তৈরী করতে  বিশেষভাবে স্বরণ রাখতে হবে যে, ভিডিও থেকে যেন মানুষ উপকৃত হতে পারে ৷ তা না হলে আপনার ভিডিও কেউ দেখবে না ৷ ইসলাম সমর্থন করে না এমন কোন ভিডিও তৈরী করবেন না যদি মুসলিম হোন ৷ মুসলিমরা ইসলামি শরিয়ার নীতি ভঙ্গ করে কোন কাজ করার সাহস করতে পারে না ৷ আল্লাহর ভয় তাদের মনে সর্বদা ক্রিয়া করে ৷ তাদের চরিত্র হয় পুত পবিত্র এবং সম্মানিত ৷ কেননা তারা চরিত্র গঠন করে কুরান পড়ে হাদিস পড়ে ৷ জীবনে তাদের কুরানের হুকুম এবং রাসূল (সাঃ) এর আদর্শ ফুটে উঠে ৷ আমাদেরকে একজন খাটি মুসলিম হতে হবে ৷ এজন্য কুরান এবং হাদিসের জ্ঞান অর্জন করতে হবে ৷

 

নতুনদের নিরাশ হওয়ার কারণঃ নতুনরা ভাল করে না জেনেই কাজে নেমে পড়ে ফলে তারা হোচট খেয়ে পিছিয়ে পড়ে ৷ ধর্য্য সহকারে সময় নিয়ে ভাল করে জানতে হবে আগে ৷ সবকিছু না জেনে কোন কাজে হাত না দেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ ৷ সুতরাং গুগুল এবং বড় ভাইদের  সহযোগিতা নিয়ে নতুনদের পথ চলতে হবে ৷

মতিউর রহমান

শিক্ষার্থী, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *