ভূমি জরিপ ও খতিয়ানের প্রকাভেদ বা খতিয়ান কত প্রকার কি কি?

ভূমি জরিপ অনুসারে খতিয়ানগুলোর নামকরণ করা হয়।বাংলাদেশে এ পযর্ন্ত আমরা তিনটা জরিপ সংঘটিত হয়েছে। এই জরিপগুলোর ফলে সৃষ্ট খতিয়ান গুলোকে ভিন্ন ভিন্ন নামে ডাকা হয়। আজকে আমরা বিভিন্ন ভূমি জরিপ ও এর ফলে সৃষ্ট খতিয়ানের প্রকারগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।

 

ভূমি জরিপ এবং খতিয়ান বলতে কি বুঝ?

নির্দিষ্ট কোন এলাকার প্রত্যেক ভূখন্ড সরেজমিনে পরিমাপ করে নির্দিষ্ট স্কেল অনুসারে এর অবস্থান এবং আয়তন সম্বলিত একটি মৌজা নকশা প্রণয়ন করে প্রত্যেক ভূখন্ডের মালিক, দখলদার, জমির পরিমাণ, মালিকানার পরিমান, জমির শ্রেণী ইত্যাদি সম্বলিত ভূমি রেকর্ড বা খতিয়ান প্রনয়ন করাই ভূমি জরিপ। সহজ কথায়, মৌজা নকসা প্রণয়ন এবং স্বত্বলিপি (RoR) তৈরির কাজকে ভূমি জরিপ বলা হয়।বাংলাদেশে পরিচালিত বিভিন্ন জরিপ নিম্নরূপঃ

  1. সি. এস. জরিপ
  2. এস. এ. জরিপ
  3. আর. এস. জরিপ

উক্ত জরিপ অনুসারে সৃষ্ট খতিয়ানগুলোকে সি. এস. খতিয়ান, এস. এ. খতিয়ান ও আর. এস.খতিয়ান নামকরণ করা হয়।

সি.এস. জরিপ (Cadestral survey) বা সি.এস. খতিয়ান):

১৮৮৮ সাল থেকে ১৯৪০ সাল পর্যন্ত ব্রিটিশ সরকারের তত্বাবধানে বাংলায় একটি ভূমি জরিপ সম্পন্ন হয় যাকে সি.এস. জরিপ বলে। কক্সবাজারের রামু থানা থেকে শুরু হয়ে দিনাজপুরে এ জরিপ শেষ হয়। প্রথম হলেও এ জরিপকে নির্ভুল হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই জরিপের মাধ্যমে তৈরি নকশাকে সি.এস. নকশা; এবং খতিয়ানকে সি.এস. খতিয়ান বলা হয়। অনেক জায়গায় এ খতিয়ানকে বৃটিশ খতিয়ান বলে ডাকা হয়। মামলা-মোকদ্দমায় কিংবা বিবাদ মিমাংশার ক্ষেত্রে এ খতিয়ানকে ভিত্তি হিসেবে ধরা হয়।সুতরাং সি.এস. নকশা, খতিয়ান বাংলাদেশে এখনও গুরুত্বপূর্ণ দলিল হিসাবে স্বীকৃতি পাচ্ছে।

এস.এ. জরিপ বা এস.এ. খতিয়ানঃ

রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহন ও প্রজাস্বত্ব আইন, ১৯৫০ এর মাধ্যমে জমিদারী প্রথা উচ্ছেদ হবার পর জমিদারদের নিকট থেকে অধিগ্রহনকৃত জমির হিসাব নির্নয়, বিলুপ্ত জমিদারীর ক্ষতিপূরন প্রদান, জমির দখলদার রায়তদের জমির মালিক হিসেবে সরকারের অধীনে আনয়ন ও মালিকানার স্বীকৃতি প্রদান প্রভৃতি কারনে ভুমি জরিপের প্রয়োজন দেখা দেয়।

সি.এস. রেকর্ড সংশোধনের লক্ষে জমিদারদের নিকট থেকে কাগজপত্র সংগ্রহের পর ১৯৫৬ থেকে ১৯৬২ এর মধ্যে একটি সংক্ষিপ্ত জরিপের মাধ্যমে যে রেকর্ড প্রস্তুত হয়, তাকে এস.এ. জরিপ বা এস.এ. খতিয়ান বলে। সংক্ষিপ্ত সময়ে জমিদারদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এ জরিপের মাধ্যমে খতিয়ান প্রস্তুত হয় বলে এতে প্রচুর ভুল-ভ্রান্তি পরিলক্ষিত হয়। ১৯৬২ সালে এ জপির শেষ হওয়ার কারণে এর সৃষ্ট খতিয়ানকে বাষট্রি খতিয়ানও বলা হয়।

 

আর.এস. জরিপ বা আর.এস. খতিয়ানঃ

এস.এ. জরিপের মাধ্যমে প্রস্তুতকৃত খতিয়ানে প্রচুর ভুল-ভ্রান্তি পরিলক্ষিত হয় বিধায় তা সংশোধনের লক্ষে গঠিত কমিটির সুপারিশের ভিত্তেতে তৎকালিন সরকার ১৯৫৬ সাল থেকে যে সংশোধনী জরিপ পরিচা্লনা করে, তাই আর.এস. জরিপ বা আর.এস. খতিয়ান নামে পরিচিত। ইতোমধ্যে দেশের অধিকাংশ এলাকায় এ জরিপ শেষ হয়েছে এবং কিছু এলাকায় এখনো চলছে। এখানে উল্লেখ্য যে, বি.এস. জরিপ; মহানগর জরিপ মূলতঃ আর.এস. জরিপের অন্তর্ভুক্ত।

 

আর.এস খতিয়ানকে বাংলাদেশ খতিয়ানও বলা হয়, যেহেতু এ খতিয়ান অনেক সময় নিয়ে সংঘটিত হচ্ছে তাই জনগণের আশা আহাঙ্কার প্রতিফলন ঘটবে বলে বিশ্বাস করা হয়। তবে সচেতনতার অভাব, শিক্ষার অভাব ও জমি দস্যুর কারণে কিছু ভূলভ্রান্তি দেখা দিলে প্রয়োজনীয় আইন-আদালতের মাধ্যমে তা সংশোধন করা প্রয়োজন।

 

খতিয়ানের নকল কোথায় কিভাবে উঠাবেন বা সংগ্রহ করবেন?

সাধারণত যে কোন খতিয়ান উঠাতে জেলা প্রশাসকের রেকর্ড রুম বরাবর আবেদনের মাধ্যমে উঠাতে হয়। এখন আপনি অনলাইনে খতিয়ান উঠাতে পারবেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের ইন্টারনেটের জমির মালিকানা যাচাই এবং খতিয়ান/পর্চা বের করার নিয়ম পদ্ধতি আর্টিকেলটি পড়ুন। চলমান জরিপের (খতিয়ান চূরান্ত প্রকাশের পূর্বে) খতিয়ানের খসরা কপি আপনার উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন।

 

আমাদের কথা

সঠিক তথ্য জনগনের মুক্তি এই স্লো গানের সাথে তাল মিলিয়ে আমারা জনস্বার্থে বিভিন্ন তথ্য আমাদের সাইটে সঠিকভাবে উপস্থাপন করার চেষ্ঠা করছি এবং হুদহুদ কম্পিউটার, মাওনা চৌরাস্তা, শ্রীপুর, গাজিপুর থেকে বিভিন্ন অনলাইন সংক্রান্ত (ডিজিটাল সেবা) নাগরিক সেবা প্রদান করে যাচ্ছি। আপনার কাছে অনলাইন সুবিধা না থাকলে এখান থেকে অনলাইন সুবিধা যেমন- যে কোন খতিয়ানকে যাচাই, অনলাইনে খতিয়ানের জন্য আবেদন কিংবা অন্যান্য সেবা গ্রহণ করতে পারেন।

আরো পড়ুন..

দলিল কত প্রকার? দলিলের সংজ্ঞা ও রেজিস্ট্রেশন গাইডলাইন

জমি ক্রয় করার আগে যে বিষয়গুলো জানা আবশ্যক

জমি ক্রয়ের পর জরুরী কাজগুলো যা জমি ক্রেতাকে অবশ্যই করতে হবে

জমি খারিজ ফরম/ ই নামজারি বা মিউটেশন (Mutation) বিস্তারিত গাইডলাইন

ফারায়েয কি? কাদের জন্য জানা জরুরী? মুসলিম উত্তরাধিকার আইন

 

জমি-জমা বা ভূমি সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন।

-জনস্বার্থে হুদহুদ কম্পিউটার

সরকারি ভূমি সেবা ওয়েব সাইট – www.land.gov.bd

হুদহুদ কম্পিউটার

হুদহুদ কম্পিউটার - মাওনা চৌরাস্তা, শ্রীপুর, গাজীপুর। যোগাযোগঃ Email- [email protected], Mobile-01632391209

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *