ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সনদপত্র উত্তোলনের পাঁচটি ধাপ ও নিয়মাবলী:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর যে কোন সার্টিফিকেট উত্তোলনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হয়। সনদপত্র উত্তোলনের জন্য কিভাবে আবেদন করবো? ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদপত্র উত্তোলনের পাঁচটি ধাপ কি কি? কিভাবে সনদ উঠানো যায়?

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য সু খবর – অনলাইন ক্লাস শুরু

প্রফেশনাল কোর্স এখন অনলাইনে

বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে এখন আর সনদ যাচাই, WES Form, সিলখাম ইত্যাদি করা যাবে না

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা,

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। আশা করি সবাই ভাল আছেন । আজকে আমরা শিক্ষার্থী সেবা বিভাগে আলোচনা করবো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সনদপত্র উত্তোলনের পাঁচটি ধাপ সম্পর্কে। আপনার মতামত, পরামর্শ কিংবা যে কোন তথ্য জানাত মেইল করুন – [email protected]

বিশ্ববিদ্যালয় সনদপত্র উত্তোলনের ধাপসমূহ ও নিয়মাবলী বিস্তারিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অনলাইন সেবা প্রদান ওয়েব লিংক:  https://service.du.ac.bd/ এই ওয়েবসাইট এ সাইনআপ করার পর সনদপত্র উত্তোলনের জন্য নিচের ধাপসমূহ অনুস্বরণ করুন।

  ধাপ-১: আবেদনকারীর তথ্য প্রদান

এই ধাপে অনলাইনে আবেদনকারী প্রয়োজনীয় তথ্য সঠিকভাবে প্রদান করবেন। তথ্য প্রদান শেষে Generate Invoice বাটনে ক্লিক করে পরবর্তী ধাপে যাওয়া যাবে। উল্লেখ্য, ফলাফল প্রকাশের পর থেকে ‘সমাবর্তন’ অনুষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত মূল সনদপত্র উত্তোলন করা যাবে না, সাময়িক সনদপত্র উত্তোলন করতে হবে। বিশেষ প্রয়োজনে মূল সনদপত্র উত্তোলন করতে হলে, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের অনুমতি গ্রহণ সাপেক্ষে অনলাইনে ফর্ম পূরণ করতে হবে। সমাবর্তন-এর পূর্বে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের অনুমতি ব্যতিরেকে মূল সনদপত্র উত্তোলন-এর আবেদন করলে, আবেদনটি বাতিল হয়ে যেতে পারে।

    সতর্কীকরণ: পরবর্তী ধাপে গেলে কোনো তথ্যই পরিবর্তন করা যাবে না। তথ্যে ভুল থাকলে সনদপত্র পেতে জটিলতা বিলম্ব হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ফি প্রদান করা লাগতে পারে।

    ধাপ-২:  আবেদনের ফি প্রদান

এই ধাপে আবেদনকারী Download Invoice বাটনে ক্লিক করে সার্টিফিকেট পে-স্লিপ pdf ফরম্যাটে ডাউনলোড করতে হবে । পে-স্লিপটি প্রিন্ট করে জনতা ব্যাংকের বাংলাদেশের যেকোনো শাখার কাউন্টারে নির্ধারিত ফি জমা দেয়া যাবে। যেদিন ফি জমা দেয়া হবে, সেই কর্মদিবসের দিন শেষে ফি জমাদানের তথ্য সিস্টেমে প্রতিফলিত হবে এবং আবেদনকারী পরবর্তী ধাপে পৌঁছে যাবেন। ফি জমা হয়েছে কি না তা চেক করার জন্য Check Payment Status বাটনে ক্লিক করে চেক করে নিতে পারেন। ফি জমা হবার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পরবর্তী ধাপে না গেলে Claim Payment বাটনে ক্লিক করে ফি জমাদান সম্পর্কিত তথ্য প্রদান করতে পারবেন।

    ধাপ-৩:  আবেদন পত্র ডাউনলোড এবং জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া

এই ধাপে আবেদনকারী সনদপত্র উত্তোলনের আবেদন ফরম ও আবেদনপত্র জমাদানের রসিদ ডাউনলোড করতে পারবেন। সনদপত্র উত্তোলনের আবেদন ফরমটি লিগ্যাল সাইজ পেপারে প্রিন্ট করতে হবে।

আবেদন ফরমটি জমা দেয়ার পূর্বে নিম্নের বিষয়গুলো খেয়াল করা প্রয়োজন:

ক) নিয়মিত ছাত্র/ছাত্রীদের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কলেজের অধ্যক্ষ/হল প্রাধ্যক্ষ কর্তৃক ফরমের যথাস্থানে স্বাক্ষর করাতে হবে । বহিরাগত ডিগ্রী (পাস) পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে গেজেটেড অফিসার কর্তৃক এবং বহিরাগত মাস্টার ডিগ্রী পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় চেয়ারম্যান কর্তৃক যথাস্থানে স্বাক্ষর করাতে হবে।

খ) মূল (সাময়িক সনদপত্র হারিয়ে গেলে)/দ্বি-নকল/ত্রি-নকল সনদপত্র গ্রহণ করতে হলে সংশ্লিষ্ট অধ্যক্ষ/প্রাধ্যক্ষ/গেজেটেড অফিসারের (যেটা প্রযোজ্য) সুপারিশসহ পৃথকভাবে একটি দরখাস্ত দিতে হবে।

গ) আবেদন ফরমের যথাস্থানে ছবির উপরে সংশ্লিষ্ট অধ্যক্ষ/প্রাধ্যক্ষ/গেজেটেড অফিসার এমনভাবে স্বাক্ষর ও সীল মোহর করবেন যাতে ছবির উপর কিছু অংশ এবং ফরমের উপর কিছু অংশ থাকে।

ঘ) মূল(সাময়িক সনদপত্র হারিয়ে গেলে)/দ্বি-নকল/ত্রি-নকল সনদপত্র তুলতে হলে পূর্বেকার গৃহীত সাময়িক/মূল/দ্বি-নকল সনদপত্র হারিয়ে যাওয়ার ঘটনা থানায় জি.ডি করাসহ পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে হবে এবং আবেদনপত্রের সাথে জি.ডি’র কপি ও পত্রিকাটি জমা দিতে হবে। ত্রি-নকল সনদপত্রের ক্ষেত্রে কোর্টের অ্যাফিডেভিট (Affidavit) আবেদন ফরমের সাথে জমা দিতে হবে। এই ধরনের সনদপত্রের উপর তারিখ সহ দ্বি-নকল/ত্রি-নকল (Duplicate/Triplicate) সীল মুদ্রিত থাকবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আবেদন ফরমটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের ৩০৯ নম্বর কক্ষে অফিস চলাকালীন সময়ে জমা দিতে হবে। আবেদনপত্র জমাদানের রসিদটি প্রিন্ট করে সনদপত্র উত্তোলনের আবেদন ফরম জমাদানের সময় ফরম গ্রহণকারী কর্মকর্তার স্বাক্ষর/সীল সংগ্রহ করতে হবে। এই রসিদটি গুরুত্ব সহকারে সংরক্ষণ করতে হবে। সনদপত্র গ্রহণের সময় এই রসিদটি অবশ্যই জমা দিতে হবে।

    আবেদনপত্রের সাথে জমা দিতে হবে:

১) সংশ্লিষ্ট অধ্যক্ষ/প্রাধ্যক্ষ/গেজেটেড অফিসার কর্তৃক প্রবেশপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি

২) সাময়িক সনদপত্র নেয়া থাকলে সাময়িক সনদপত্র

৩) যেসকল স্নাতকোত্তর পরীক্ষা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয় (উদাহরণ: এম.এফ.এ) সেসকল ক্ষেত্রে ১ম পর্বের মার্কস্ সার্টিফিকেট

8) এম ফিল/পিএইচ.ডি. উর্ত্তীর্ণ গ্যাজুয়েট গনের সাময়িক/মূল সনদের জন্য আবেদন ফরমের সাথে সিন্ডিকেটের আদেশ/ফলাফলের (০২) দুই কপি ফটো কপি আবেদন ফরমের সাথে দিতে হবে। থিসিসে টাইটেল বাংলায় থাকলে সুপারভাইজারের মাধ্যমে ইংরেজী করে আনতে হবে।

সনদপত্রের আবেদন ফরম জমা হয়ে গেলে আবেদনকারী স্বয়ংক্রিয়ভাবে ধাপ-৪ এ পৌঁছে যাবেন।

 ধাপ-৪: সনদপত্রের জন্য অপেক্ষা করা

সনদপত্র তৈরি না হওয়া পর্যন্ত আবেদনকারীকে এই ধাপে অপেক্ষায় থাকতে হবে। প্রদত্ত তথ্যে ভুল থাকলে/সংশোধন প্রয়োজন হলে অনলাইনে নির্দেশনা দেয়া হবে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে অফিসে এসে তথ্য সংশোধন করা লাগতে পারে। তথ্য সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত সনদপত্র প্রস্তুত করা হবে না। প্রদেয় তথ্য সঠিক থাকলে বা প্রয়োজনীয় তথ্য সংশোধন হয়ে গেলে সনদপত্র প্রস্তুত করা হবে। সনদপত্রটি প্রস্তুত হয়ে গেলে আবেদনকারী স্বয়ংক্রিয়ভাবে ধাপ-৫ এ পৌঁছে যাবেন। ধাপ-৫ এ পৌঁছার পূর্বে সনদপত্র সংগ্রহ করা যাবে না।

    ধাপ-৫: অফিস চলাকালীন সময়ে সনদপত্র সংগ্রহ করা

সনদপত্রটি প্রস্তুত হয়ে গেলে আবেদনকারী এই ধাপে পৌছে যাবেন। আবেদনকারী পরীক্ষার প্রবেশপত্রের মূল কপি দেখিয়ে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের ৩০৯ নম্বর কক্ষ থেকে অফিস চলাকালীন সময়ে সনদপত্রটি সংগ্রহ করতে পারবেন। সনদপত্র সংগ্রহের সময় আবেদনপত্র জমাদানের রসিদটি অবশ্যই জমা দিতে হবে। সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের সুপারিশ ব্যতীত বিশ্ববিদ্যালয়ের নিকট অন্য ব্যক্তির সনদপত্র গ্রহণের ব্যাপারে ”কোনো প্রকার ক্ষমতা অর্পণ” পত্র গ্রহণযোগ্য হবে না।

সুত্র: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষা সংক্রান্ত সকল আর্টিকেল পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

হুদহুদ কম্পিউটার

হুদহুদ কম্পিউটার - মাওনা চৌরাস্তা, শ্রীপুর, গাজীপুর। যোগাযোগঃ Email- [email protected], Mobile-01632391209