কীওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করবো বা Keyword Research কি?

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ টুলস (Keyword Research) প্রতিটি ওয়েব সাইটের মালিক বা ব্লগাররা ব্যবহার করে তাদের কাঙ্খিত কীওয়ার্ড বা কী ফ্রেস পাওয়ার জন্য । আপনি যদি ব্লগ কিংবা ওয়েব সাইটের মালিক হন আর Keyword Research কি তা না জানেন তাহলে আপনি ডিজিটাল অন্ধকারে পড়ে আছেন। কেননা সাবাই যখন মটর বাইক দিয়ে প্রতিযোগিতা দিচ্ছে তখন আপনি তাদের সাথে বাই সাইকেল দিয়ে প্রতিযোগিতা দিতে যাবেন কোন হিসেবে?

 

কেন keyword research করাটা জরুরি?

 

 

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ কি? একটি ওয়েব সাইট বা ব্লগের জন্য কেন Keyword Research করা প্রয়োজন? কিভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে হয়? এই ব্যপারগুলো যদি না জানেন তাহলে ওয়েব সাইটের মালিক কিংবা ব্লগার হিসাবে আপনার প্রচুর সমস্যা রয়েছে।

 

আপনি ওয়েব সাইট কিংবা ব্লগ করছেন ইন্টারনেটে আয় করা জন্য । আপনি এও জানেন যে সাইটে যত বেশি ভিজিটর্স আসবে আপনার ইনকাম তত বেশি হবে। এখন যদি আপনি কীওয়ার্ড রিসার্চ না করে সাইট কিংবা আর্টিকেল লিখেন আর গুগল সার্চ ইঞ্জিনসহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন এ সেই বিষয়ে সার্চ ভলিওম অনেক কম তাহলে সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর্স আপনার সাইটে আসবে না।

 

সুতরাং keyword research করে দুটি বিষয় অবগত হওয়া প্রয়োজন।

প্রথম বিষয় হলো লাভজনক এবং সার্চ ইঞ্জিনে অনেক বেশি পরিমানে সার্চ হওয়া কীওয়ার্ডগুলো খুজে বের করার জন্য keyword research করাটা জরুরি ।

 

দ্বিতীয় যে বিষয় তা হলো- আপনি যে বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখছেন সার্চ ইঞ্জিনে সেই বিষয়ে কতটা সার্চ হচ্ছে তা জানা। লোকেরা আপনার আর্টিকেলের বিষয় বস্তু ‍নিয়ে গুগলে সার্চ করছে কিনা বা করলেও কতটুকু সার্চ করছে তা জানার জন্য keyword research করাটা অত্যান্ত জরুরি।

 

মনে রাখবেন আপনি যে keyword টার্গেট করে আর্টিকেল লিখেছেন সার্চ ইঞ্জিনে সেটা যদি মাসে ১০০ বারেও কম সার্চ হয় তাহলে সেই আর্টিকেল লিখে লাভ হবে না। এজন্য keyword research বেশি জরুরি।

 

 

অনেক সময় ব্লগাররা অনেক ভালো কোয়ালিটির আর্টিকেল লিখেন, তবুও তাদের সাইটে সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক বা ভিজিটর্স একেবারেই আসে না। এর মানে হলো “কীওয়ার্ড রিসার্চ না করে আর্টিকেল লিখা”.

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ না করে আর্টিকেল লিখলে দুটি বড় সমস্যায় পড়তে হয়। এক সাইটে ভিজিটর্স বা ব্যবহারকারী পাওয়া যায় না । দুই আর্টিকেল এর জন্য নতুন কীওয়ার্ড আইডিয়া জানা যায়।

 

আপনি যদিও ভালো ভালো আর্টিকেল লিখছেন এবং আর্টিকেলটি প্রচুর ভালো ভাবে SEO optimization করেছেন, কিন্তু হতে পারে আপনার টার্গেট করা কীওয়ার্ড নিয়ে গুগল সার্চে একেবারেই সার্চ হয়না।

 

অনেক সময় দেখবেন, ব্লগসাইটে বা ওয়েবপেজে সবকিছু সঠিকভাবে করার পরও  “ব্লগে ট্রাফিক ও ভিসিটর্স আসে না”.

 

তাই, ব্লগের আর্টিকেল লিখার আগেই কীওয়ার্ড রিসার্চ করার উদ্দেশ্য হচ্ছে এই যে, যে keyword টার্গেট করে আর্টিকেল লিখবেন, সেটা যেন গুগল সার্চে মাসে ভালো সংখ্যায় অর্থাৎ অধিক পরিমাণে সার্চ হয়।

 

পরিমানে যত বেশি (কমপক্ষে ৫০০ থেকে বেশি) আপনার টার্গেট করা keyword গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ হবে, আপনার সাইটে ততটাই বেশি ট্রাফিক বা ভিসিটর্স আসার সুযোগ হয়ে যাবে।

 

ওয়েবসাইটের সফলতার একমাত্র পথ হলো সঠিকভাবে কীওয়ার্ড রিসার্চ করাঃ

 

আপনি ‍যদি সহজেই সফলতা পেতে চান তাহলে আপনাকে সঠিকভাবে “keyword research”  করতে হবে।

 

মনে রাখবেন, ব্লগিং ক্যারিয়ারে তারাতারি সফলতা পাওয়ার মূল মন্ত্র হলো “অধিক জনপ্রিয় এবং অধিক বেশি পরিমানে সার্চ হওয়া কীওয়ার্ড টার্গেট করে ভালমানের আর্টিকেল লিখা।

 

এই সাইটের জন্য আর্টিকেল লিখতে যেটা আমরা করছি।

 

এবং, এরকম লাভজনক কীওয়ার্ড কেবল “কীওয়ার্ড রিসার্চ” এর প্রক্রিয়া ব্যবহার করে বের করা সম্ভব।

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ কাকে বলে? কিভাবে কীওয়ার্ড রিসার্চ করা হয়

 

 

বর্তমান ব্লগিং করা এক ধরণের প্রতিযোগিতা মূলক ব্যাবসা (business) এর মত। একই বিষয় বা niche নিয়ে হাজার হাজার মানুষ আর্টিকেল লিখছে। ফলে প্রত্যেক ব্লগার (blogger) দের মধ্যে প্রচুর প্রতিযোগিতার (competition) সৃষ্টি হচ্ছে।

 

এখন আমরা যেকোনো কীওয়ার্ড (Keyword), প্রশ্ন, বিষয় বা সমস্যা নিয়ে গুগল সার্চ করলে, গুগল আমাদের অনেক ভালো সমাধানগুলো তার প্রথম পাতায় প্রদর্শন করে।

 

কিন্তু, একই প্রশ্নের উত্তর বা সমাধান হাজার হাজার ব্লগে প্রকাশ হওয়ার ফলে, গুগল বা অন্য সার্চ ইঞ্জিন গুলি তথ্যকে সয়ংক্রিয় সিস্টেমের মাধ্যমে অনেক যাচাই বাচাই করে আদর্শ হিসাবে চয়েস (choice) করে।

 

গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের সেরা সার্চ রেজাল্টঃ

 

গুগল ও অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলো, সব থেকে সেরা, আদর্শ আর্টিকেল, SEO friendly, user friendly, high quality কনটেন্ট থাকা ব্লগ বা ওয়েবসাইট গুলোকে তার সেরা ১০ রেজাল্ট (Top 10 Results) হিসাবে প্রথম পাতায় প্রদর্শন করে।

 

আর আদর্শহীন, low quality, poor SEO optimization থাকা কনটেন্ট বা ব্লগ গুলিকে সার্চ ইঞ্জিন দ্বিতীয় পেজে বা পরবর্তী পেজে প্রদর্শন করে।

 

ফলে, গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলো থেকে, কেবল প্রথম পাতায় থাকা ব্লগ বা ওয়েবসাইট গুলির ট্রাফিক বা ভিসিটর্স প্রচুর পরিমাণে বৃদ্ধি পায়।

 

তাই, যদি আপনার সাইটে গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক ও ভিসিটর্স ভাল পরিমানে বা মোটেও না আসে, তাহলে হতে পারে আপনার সাইটে ভালো কোয়ালিটির আর্টিকেল অনুপস্থিত রয়েছে।

 

তাছাড়া, নিজের সাইটের আর্টিকেল গুলিতে সঠিক SEO optimization techniques ব্যবহার না করলেও, সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে পড়ে।

 

কিন্তু, যদি আপনার সাইটে ভালো কোয়ালিটির আর্টিকেল থাকে এবং ভালো SEO optimizations করেও সার্চ ইঞ্জিন থেকে ট্রাফিক না পান, তাহলে এর কারণ হতে পারে “কীওয়ার্ড রিসার্চ না করা”.

 

আপনার সাইটে যদি, “keyword research কি”, এবং কিভাবে কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে হয়, এই ব্যাপারে কোনো জ্ঞান না রেখেই আর্টিকেল লিখা হয়, তাহলে SEO এর দিক দিয়ে এটা একটা বড় ধরণের ভুল।

 

Keyword research কি? এই প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য আপনাকে আগেই জানতে হবে “কীওয়ার্ড মানে কি”.

 

Website SEO কি? কেন SEO করবেন? কিভাবে SEO করবেন?

 

কীওয়ার্ড (Keyword) মানে কি? (What is keyword?)

 

আমরা এখন জনবো কীওয়ার্ড কাকে বলে। ওয়েব সাইটে আর্টিকেল লেখার ক্ষেত্রে, কীওয়ার্ড (keywords) হলো এমন একটি বিষয়, যার মাধ্যমে গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন (search engine) ওয়েব সাইট কিংবা ব্লগে লিখা আর্টিকেলের বিষয় বুঝতে ও জানতে পারে।

 

সাইটের আর্টিকেলের লক্ষ্যবস্তু কীওয়ার্ড (targeted keyword) এর ওপরে নির্ভর করে সার্চ ইঞ্জিন গুলো ব্লগ কিংবা সাইটে সঠিক ট্রাফিক বা ভিসিটর্স পাঠায়।

 

 

 

কীওয়ার্ড এর সংজ্ঞাঃ

 

ইন্টারনেট থেকে কোন কিছু জানার জন্য আমরা যখন গুগল সার্চে (Google search) কিছু সমস্যা বা বিষয় নিয়ে সার্চ করি, তখন আমরা কি লিখি?

 

যেমন ধরুন-“কিভাবে অনলাইন টাকা আয় করবো?”, “কীওয়ার্ড রিসার্চ মানে কি”, “কোন মোবাইল সবচেয়ে ভাল?”, “সেরা এন্ড্রয়েড মোবাইল কিভাবে চিনবো?”,“কীওয়ার্ড রিচার্স কিভাবে শিখবো?” এবং এরকম কিছু শব্দ বা বাক্য লিখে গুগল সার্চ করি।

 

ইন্টারনেট থেকে কোন কিছু জানার জন্য গুগল সার্চে লিখা এই ধরণের “শব্দ” বা “বাক্য” গুলোকেই কীওয়ার্ড বলে।

 

অন্যভাবে বলা যায়- একটি কীওয়ার্ড মানে হলো “আপনি গুগল সার্চে, bing search বা yahoo search ইঞ্জিনে যা লিখে সার্চ করেন” সেই সম্পূর্ণ শব্দ বা বাক্যটিকে কীওয়ার্ড বলে।

 

 

Keyword-কীওয়ার্ড এর ধরণঃ

 

ওয়েব সাইটের জন্য Keyword-কীওয়ার্ড একটি শব্দ বা একাধিক শব্দের কোনো বাক্য হতে পারে।

 

উদাহরণ হিসাবে যেমন- “online income” এবং “online income tricks in Bangla” দুটোই কিন্তু কীওয়ার্ড-keywords.

 

তবে, দুটো থেকে বেশি শব্দের keywords গুলিকে “key phrase” বলা হয়।

 

 

সুতরাং কীওয়ার্ড ছোট একটি শব্দ হতে পারে আবার বড় কোন বাক্যও হতে পারে। তবে সাধারণত বেশিরভাগ “keywords” গুলো ৩ থেকে ৪ টি শব্দের একটি বাক্য হয়।

 

 

যদি এই আর্টিকেলের ব্যাপারে বলেন যে, কি কি কীওয়ার্ড টার্গেট করে আর্টিকেলটি লিখেছি? তাহলো এখানে আমি “কীওয়ার্ড রিসার্চ কি”, “Keywords কি”, “SEO”, “blog traffic”, “কীওয়ার্ড রিসার্চ করার নিয়ম” “Keywords কিভাবে রিসার্চ করা হয়” এই কীওয়ার্ড গুলি টার্গেট করে লিখেছি।

 

সুতরাং এই keywords গুলি নিয়ে যদি কেও গুগলে সার্চ করেন, তাহলে অবশ্যই গুগল তার সার্চ রেজাল্টে আমার এই আর্টিকেল প্রদর্শন করাবে।

 

 

 

মনে রাখা প্রয়োজন,

 

ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বা ভিসিটর্সরা গুগলে (সার্চ ইঞ্জিনে) কোন keywords লিখে অধিক সার্চ করছে, এবং আপনি কোন keywords টার্গেট (target) করে আর্টিকেল লিখছেন, উভয় কীওয়ার্ড এর মধ্যে মিল থাকতে হবে যদি আপনি সার্চ ইঞ্জিন থেকে প্রচুর ট্রাফিক বা ভিসিটর্স পেতে চান।

 

এখন, প্রশ্ন থাকতে পারে “কিভাবে বুঝবেন যে, মানুষজন গুগলে কোন কীওয়ার্ড লিখে বেশি সার্চ করছে?”.

 

সোজা কথায় এর উত্তর হলো, “keyword research এর মাধ্যমে”.

 

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ মানে কি? (What Is Keyword Research)

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ হচ্ছে, seo (search engine optimization) এর একটি এমন গুরুত্বপূর্ণ এবং জরুরি প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে ওয়েব সাইটের আর্টিকেল লিখার জন্য জনপ্রিয় এবং সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে অধিক পরিমানে সার্চ হওয়া keywords এবং key phrase গুলি খুঁজে বের করা হয়।

 

 

এছাড়াও, এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ওয়েবসাইটের আর্টিকেল লিখার জন্য, লাভজনক এবং লোকজনের বেশি চাহিদা বা রুচি রাখা নতুন নতুন টপিক (topic) এবং key phrases খুঁজে পেতে সহযোগিতা পাই।

 

যে কোনো আর্টিকেল “search engine” এর জন্য optimize করার সবচেয়ে কার্যকর এবং প্রথম ধাপ (step) হলো keyword research.

 

এর দ্বারা আপনি অনেক ভালো এবং গুগলে অধিক বেশি পরিমানে সার্চ হওয়া keywords খুঁজে নিয়ে এবং সহজেই আরও কীওয়ার্ড আইডিয়া পেতে পারেন।

 

এবং, এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রিসার্চ করে খুঁজে বের করা লাভজনক keywords target করে আর্টিকেল লিখে, গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলো থেকে আপনার সাইটে অধিক পরিমানে ভিসিটর্স পেতে পারেন।

 

 

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ করার নিয়ম ও প্রক্রিয়া কি?

 

অধিক লাভজনক, জনপ্রিয় এবং গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে অধিক বেশি পরিমানে সার্চ হওয়া প্রশ্ন, বিষয় বা কীওয়ার্ড গুলির ব্যাপারে জানার জন্য বা সেগুলি খুঁজে বের করার জন্য, আমাদের কিছু “Keyword research tools” ব্যবহার করতে হবে। যে কাজগুলো ওয়েবসাইটের মালিকরা সাধারণত করে থাকে তার একটি হলো “Keyword research tools” এর ব্যবহার।

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য অনলাইনে অনেক ভালো ভালো tools রয়েছে। সেগুলো ব্যবহার করে ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল লিখা অনেক লাভজনক।

 

কিন্তু, এদের বেশিরভাগ গুলোই paid tools এবং এগুলি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে অনেক বেশি পরিমানে অর্থ খরচ করতে হবে।

 

Keyword Research টুলসঃ

ahrefs.com

Keyword Tool

Kwfinder

 

উপরের তিনটি বিশ্বের সেরা কীওয়ার্ড টুলস । ওয়েব সাইটের মালিক কিংবা ব্লগাররা এগুলো ব্যবহার করে কীওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য। ওয়েব সাইট কিংবা ব্লগ সাইট অথবা আর্টিকেলের জন্য কীওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য এই টুলসগুলো ব্যবহার করতে প্রচুর টাকা খরচ করা লাগে। তবে আপনি কিছু ফ্রি কীওয়ার্ড টুলস ব্যবহার করে Keyword Research করতে পারেন।

 

অর্থাৎ, এমন অনেক free keyword research techniques এবং tools রয়েছে, যেগুলো আপনি কোনো টাকা না দিয়েই ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন।

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ ফ্রীতে করবেন যেভাবে?

 

ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগের আর্টিকেল লিখার জন্য profitable keyword ideas খোঁজার জন্য এখানে ৪ টি প্রক্রিয়া ব্যবহার করার কথা উল্লেখ করছি।

 

  1. Google keyword planner tool
  2. Ubersuggest tool
  3. Keyword tool
  4. অন্যান্য মাধ্যমে কীওয়ার্ড রিসার্চ

 

এই ৪ টি কীওয়ার্ড রিসার্চ টুলস ও টেকনিক ব্যবহার করে ফ্রীতে কীওয়ার্ড রিসার্চ করে, আমারা এই সাইটের প্রত্যেক আর্টিকেলের জন্য লাভজনক কীওয়ার্ড, বিষয় বা আর্টিকেল টপিক খুঁজে বের করার চেষ্ঠা করি এবং কোন কীওয়ার্ড/বিষয় গুগল সার্চে কতটা জনপ্রিয় সেটাও জানার চেষ্ঠা করি।

বলে রাখা ভাল যে, ওয়েবসাইটের SEO করার প্রথম এবং গরুত্বপূর্ণ প্রধান কাজ হলো কীওয়ার্ড রিসার্চ করে আর্টিকেল লিখা। তাই খুবই যত্নসহকারে এই প্রক্রিয়াগুলো সম্পন্ন করতে হবে।

 

কীওয়ার্ড রিসার্চ ফ্রী টুলসূমুহঃ

১. Google keyword planner tool

আমরা সাধারণত গুগলের এই ফ্রি টুল ব্যবহার করে এই সাইটের প্রতিটি আর্টিকেলের জন্য ভালো ভালো এবং গুগল সার্চে অধিক বেশি পরিমাণ সার্চ হওয়া কীওয়ার্ড খুঁজে বের করি।

এই টুলটি সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং অধিক ব্যবহার করে ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগসাইটের মালিকরা। এটা গুগলের একটি ফ্রি সার্ভিস । ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগসাইটের মালিকরা সম্পন্ন বিনামূল্যে এই টুলটি ব্যবহার করে থাকে।

Google keyword planner tool

 

Google keyword planner tool এর search box কোন keyword বা key phrase লিখে সার্চ করলে, টুলটি রেজাল্ট দেখাবে যে, ঐ keyword বা key phrase শব্দ বা বাক্যটি গুগলে মাসে কতবার সার্চ করা হচ্ছে।

সার্চ করা কীওয়ার্ড এর মাসের সার্চের সংখ্যা দেখানোর পাশাপাশি সেই কীওয়ার্ড টিতে “প্রতিযোগিতা (competition)” কতটা কম বা বেশি, সেটাও দেখা যায় টুলটিতে।

 

এখানে ইংরেজির সাথে সাথে বাংলা কীওয়ার্ড, হিন্দি কীওয়ার্ড বা অন্যান্য ভাষার কীওয়ার্ড এই টুলের সাহায্যে সহজেই রিসার্চ করা যায়।

 

গুগলের এই ফ্রি টুলের সাহায্যে Location, language এর সাথে, কোন মাসে বা সময়ে keyword টির চাহিদা কেমন তার সবটাই জেনে নেয়া সম্ভব।

এছাড়াও, এই টুলের আরো বিষেশ সুবিধা হচ্ছে-

টুলে সার্চ করা শব্দ বা বাক্যের সাথে জড়িত (related) আরো অন্যান্য keywords এবং গুগলে তাদের সার্চের পরিমান কিরকম তা জানা যায়।

 

ফলে, ওয়েবসাইটের জন্য কন্টেন্টে টার্গেট করা কীওয়ার্ড এর সাথে জড়িত আরো লাভজনক keywords যোগ করা যায়। আবার, সাইটে ভবিষ্যতের নতুন নতুন আর্টিকেল লিখার জন্য লাভজনক keyword ideas ও পাওয়া যায়।

 

Google keyword planner টুল হচ্ছে গুগলের একটি ফ্রি সার্ভিস। যে কেউ এটি ব্যবহার করতে পারে। তবে এই টুল ব্যবহার করার জন্য একটি Google account প্রয়োজন।

Google keyword planner টুল এ কিভাবে কাজ করবেন?

 

Goole keyword planner Tool টিতে গিয়ে, “Discover new keyword ideas” অপশনে যান।

 

তারপর, যেই keyword নিয়ে research করতে চান, সেটা লিখে নিচে “Get results” অপশনে ক্লিক করুন।

 

মনে রাখবেন, আপনি যদি বাংলা কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে চান, তাহলে ভাষাটি “English” থেকে “Bangla”  করে নিবেন।

 

. Ubersuggest tool

Ubersuggest

গুগলের কীওয়ার্ড প্ল্যানার টুল এর পর আমাদের পরামর্শ হলো “Ubersuggest tool”  কীওয়ার্ড টুলটি ব্যবহার করা।

কেননা, keyword planner এর মতোই, এই টুল সম্পূর্ণ ফ্রি এবং যেকোনো কীওয়ার্ড গুগলে মাসে কতবার সার্চ করা হয়, তার সঠিক তথ্য এই টুলের সাহায্যে দেখে নেওয়া যায়।

 

. Keyword tool

Keyword Tool

ইংরেজি এবং বাংলা কীওয়ার্ড গুলো নিয়ে রিসার্চ করার আরো একটি ফ্রি লাভজনক টুল হলো “Keyword tool”.

এই টুলটি সম্পূর্ণ ফ্রি না আপনার সার্চ করা keyword এর search volume, CPC এবং competition জানার জন্য অর্থ খরচ করতে হয়।

 

তবে, এই টুল আসল কীওয়ার্ড এর সাথে জড়িত অন্যান্য related keywords খোঁজার জন্য সেরা।

 

৪.অন্যান্য মাধ্যমে কীওয়ার্ড রিসার্চ

আমরা আমাদের সাইটের আর্টিকেল লিখার জন্য অন্যান্য যে মাধ্যম গুলো বা টেকনিক কাজে লাগাই তা হলো গুগল ট্রেন্ড, বিভিন্ন সোসাইল মিডিয়া ট্রেন্ড ইত্যাদি।

এছাড়াও যেটা ব্যবহার করি তা হলো গুগল অটো সাজেস্ট । কেননা লোকজন প্রচুর সার্চ না করলে গুগল সেটা সাজেস্ট করেনা।

উপরের পিকচারে দেখুন এখানে আমি ”keyword Tool” লিখেছি নিচে এই রেলেটেড আরও অনেকগুলো কীওয়ার্ড সাজেস্ট করছে। এই কীওয়ার্ডগুলো নিয়ে আমরা আর্টিকেল লিখি। এবং এই কীওয়ার্ডগুলোর গুগলে সার্চ ভেলু কি রকম তা Google keyword planner টুল এর মাধ্যমে জেনে নেই।

 

এই আর্টিকেলে আমরা কি কি শিখলাম ?

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, আজকের এই আর্টিকেলে আমরা যা শিখলাম তা হলো, কীওয়ার্ড রিসার্চ কাকে বলে এবং কিভাবে কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে হয় ।

আরও শিখলাম যে, কীওয়ার্ড নিয়ে রিসার্চ করার জন্য কিছু ফ্রি টুলস (tools) এবং তাদের প্রক্রিয়া গুলো কি কি ।

বিষেশভাবে যা শিখলাম তা হলো – কেন আর্টিকেল লিখার আগে কীওয়ার্ড রিসার্চ করা প্রয়োজন।

যদি আপনি আগের থেকেই জানা থাকে যে, আপনার বিষয় বস্তুর কীওয়ার্ডগুলো গুগলে সার্চ ভলিয়ম ভাল এবং কীওয়ার্ড টি নিয়ে গুগলে রাংক করাটা কতটা সহজ, তাহলে অবশই অনেক কম সময়ের মধ্যে আপনি গুগল থেকে প্রচুর ট্রাফিক বা ভিজিটর্স পাবেন।

উল্লেখ্য যে, ব্লগিং এবং SEO এর বিবেচনায় সব থেকে জরুরি এবং গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছ- “Keyword research” করা।

 

আশা করি যারা ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগ সাইট করে আয় করার চিন্তা করছেন তাদের জন্য এই আর্টিকেলটি কাজে দিবে। আপনার মতামত কিংবা পরামর্শ দিয়ে আমাদের উৎসাহিত করুন এবং ভাল লাগলে শেয়ার করে আমাদের সাথেই থাকুন।

ধন্যবাদ-

মতিউর রহমান

শিক্ষার্থী, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *