অনলাইনে ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) রেজিষ্ট্রেশন বা ই BIN নিবন্ধন পদ্ধতি

অনলাইনে ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) রেজিষ্ট্রেশন বা ই BIN নিবন্ধন পদ্ধতি নিয়ে আজকে আপনাদের সামনে হাজিন হলাম । সংক্ষিপ্তভাবে এখানে আলোচনা করা হয়েছে। যদি বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে আমাদের জানান আমরা বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ।

অনলাইন থেকে ভোটার আইডি বের করার নিয়ম – NID Online 2020

বিদ্যুৎ বিল বিকাশ করা পদ্ধতি

ইন্টারনেট/অনলাইনে আবেদন বা ভর্তি

কোন ধরনের ব্যাবসার জন্য ভ্যাট নিবন্ধন প্রয়োজন?


যে সকল ব্যবসায় বাৎসরিক আর্থিক লেনদেন ৩০ লক্ষ টাকার উপরে তাদের জন্য ভ্যাট নিবন্ধন প্রয়োজন। বছরে ৩০ লক্ষ টাকার কম লেনদেন হয় এমন প্রতিষ্ঠান অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন করতে পারবে না বা প্রয়োজন নেই।

 

নতুন ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) আইনের আওতায় অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন করার শর্ত হচ্ছে – কোন প্রতিষ্ঠানে বছরে ত্রিশ লক্ষ টাকার বেশি লেনদেন হলে সেই প্রতিষ্ঠানের জন্য অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন করে নিতে হবে এবং বছরে ৮০ লক্ষ টাকার উপরে লেনদেন হলে ১৫% হারে ভ্যাট প্রদান করতে হবে। ভ্যাট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে “হুদহুদ কম্পিউটার” মোবাইল অ্যাপটি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন। প্লে স্টোরে বাংলায় “হুদহুদ কম্পিউটার” লিখে সার্চ দিলে অ্যাপটি পাওয়া যাবে।

 

অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন – প্রোপ্রাইটরশীপ ব্যবসার জন্য BIN এর জন্য নিচের ধাপগুলো অনুস্বরণ করুন। অনলাইনে নিবন্ধন শরু করার আগে নির্দেশিকা ভাল করে পড়ুন। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে রাখুন। অনলাইনে আবেদনের জন্য নিচের ধাপগুলো লক্ষ করুন।

 

১।  প্রথমে www.vat.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।

 

২। এখানে নিজের নামে প্রফাইল রেজিস্টার করার জন্য Sign-Up করুন। সাইন-আপ হচ্ছে ভ্যাট অনলাইন সিস্টেমের সাথে আপনার পরিচিতি তৈরি করা। অর্থাৎ নিজের নামে একটি একাউন্টি তৈরি করা। এ একাউন্ট দিয়েই ভ্যাট নিবন্ধন, দাখিলপত্র পেশসহ সকল প্রকার কাজ করতে হবে। এখানে আপনি ভ্যাট রেজিস্টার অনলাইন সিস্টেমে প্রবেশের জন্য User ID এবং Password পাবেন।
সাইন-আপের সময় যে বিষয় খেয়াল রাখতে হবে তা হলো : একটি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন গ্রহণের জন্য Register as Taxpayer (Headquarter) নির্বাচন করতে হবে। প্রতিষ্ঠানের কেন্দ্রীয় নিবন্ধনের আওতায় শাখা নিবন্ধন নেয়ার পর কেবল সেই শাখার কাজ করার জন্য Register as Taxpayer (Branch) নির্বাচন করে সাইন-আপ করতে হবে। অপর দিকে যদি ভ্যাট কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কোনো স্টাফকে কাজ করার দায়িত্ব প্রদান করা হয় সে ক্ষেত্রে Register as Taxpayer’s Employee হিসাবে সাইন-আপ করতে হবে।

 

৩। সাইন-আপ ফরমে ডাটা প্রদান করে Check বাটন চাপুন। কোনো ভুল থাকলে নির্দেশনা দিবে সেই মোতাবো সংশোধন করে Submit বাটন ক্লিক করে Submit করুন।

 

৪।নিশ্চয়তার একটি ইমেইল পাবেন। সেখানে ভেরিফাই করার একটি লিংক পাবেন। ওই লিংকে ক্লিক করে www.vat.gov.bd ওয়েবসাইটে যেয়ে লগইন করুন। প্রথম লগইন এর সময় নির্দেশনা অনুযায়ী পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নিতে হবে। আপনার পছন্দমত পাসওয়ার্ড সেট করে নিন।

 

৫। ভ্যাট নিবন্ধনের জন্য Forms হতে Mushak-2.1 Form সিলেক্ট করুন।

 

৬। লক্ষ্য করুন, মূসক-২.১ ফরমের প্রথম ঘরে আপনার টিআইএন এবং দ্বিতীয় ঘরে টিআইএন সনদে বিদ্যমান আপনার নাম দেখাচ্ছে। এ নামটি আপনার নিজের নাম। এবার মূসক-২.১ ফরমে অন্যান্য তথ্য দিন, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র স্ক্যান করে আপলোড করুন এবং ক্রমিক ৩ এর পদ্ধতিতে প্রথমে Check বাটন চাপুন। কোনো ভুল থাকলে নির্দেশনা অনুসরণ করে সংশোধন করে Submit বাটন ক্লিক করে Submit করুন।

 

৭।সাবমিট করার পর এক দুই দিন সময় নিতে পারে ভেরিফাই করার জন্য। নির্দেশনা অনুসরণ করুন। আপনার নিজের নামে ৯ ডিজিটের একটি Business Identification Number (BIN) সংবলিত মূসক-২.৩ ফরমে একটি সনদ তৈরি হয়ে যাবে। এটি আপনার ই-মেইলেও প্রেরন করা হবে। আপনার নিজের নামে তৈরিকৃত এই Business Identification Number (BIN) টি মাস্টার বিআইএন হিসেবে বিবেচিত হবে এবং এ বিআইএন এর জন্য আপনাকে কোনো কর প্রদান বা দাখিলপত্র পেশ করতে হবে না।

 

৮। এবার আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের নামে একটি বিআইএন গ্রহণের জন্য মূসক-২.২ ফরম পূরণ করতে হবে। এই ফরমে আপনার প্রতিষ্ঠানের নাম লিখুন। এই নামে আপনার নতুন শাখা বিআইএন ও সনদ তৈরি হবে। এ নামে আপনাকে কর প্রদান করতে হবে, হিসাব রাখতে হবে এবং দাখিলপত্র পেশ করতে হবে।

 

৯। আপনার যদি একাধিক নামে একাধিক ব্যবসায় থাকে তাহলে প্রতিটির জন্য একটি করে মূসক-২.২ পূরণ করে একই নিয়মে সেগুলোর জন্য আলাদা বিআইএন তৈরী করে নিন। সবগুলোর জন্যই কর দিতে হবে এবং দাাখিলপত্র পেশ করতে হবে।

 

১০। প্রতিষ্ঠানের ব্রাঞ্চের জন্য আলাদা লোককে ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব প্রদানের ক্ষেত্রে Register as Taxpayer (Branch) হিসাবে সাইন-আপ করা একজনকে সে দায়িত্ব দিন। কোনো শাখার জন্য কোনো স্টাফকে কাজ করার দায়িত্ব প্রদানের ক্ষেত্রে Register as Taxpayer’s Employee হিসাবে সাইন-আপ করে বিআইএন তৈরী করে নিতে হবে। 


১১। উদাহরণ: ধরি মি. রপিকের ২টি প্রোপ্রাইটরশীপ ব্যবসা আছে, যথা: (ক) হুদহুদ ট্রেডার্স এবং (খ) হুদহুদ বাংলা ট্রাভেলস। তিনি তার নিজের টিআইএন ব্যবহার করে সাইন-আপ করবেন এবং প্রথমে মূসক-২.১ ফরম পূরণ করে মি. রপিকের নামে একটি নিবন্ধন নিবেন। এটি মাস্টার বিআইএন। অতপর মূসক-২.২ ব্যবহার করে হুদহুদ ট্রেডার্স নামে একটি এবং হুদহুদ বাংলা ট্রাভেলস নামে আরেকটি বিআইএন তৈরী করে নিবেন। তার বিআইএন ৩টি হলেও ব্যবসায় ২টি। কর প্রদান করতে হবে ২টির এবং দাখিলপত্রও পেশ করতে হবে ২টির। নিজের নামের বিআইএনটির জন্য কিছু করতে হবে না।

 

১২। ব্যাক্তির টিআইএন এর সাথে বিআইএন সমন্বয় করার জন্য এ পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে।

 

যারা অনলাইন সম্পর্কে তেমন অভ্যাস্ত নন তারা অভীজ্ঞ কারো সহযোগিতা নিন। তাছাড়া বর্তমানে অনলাইন সার্ভিস দেওয়ার জন্য অনেক প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেছে তাদের সহযোগিতা নিতে পারেন। অনলাইন সহযোগিতা পেতে “হুদহুদ কম্পিউটা” মোবাইল অ্যাপটি আপনার ফোনে ইন্সটল করুন। অথবা আমাদের অফিসে চলে আসুন।

আপনার ফেসবুক আইডি কি নিরাপদ আছেতো?

দৈনন্দিন আবহাওয়া ও বন্যা পূর্বাভাস বা দুর্যোগের আগাম বার্তা জানার জন্য টোল ফ্রি নম্বর ১০৯০ এ কল করুন

মতিউর রহমান

শিক্ষার্থী, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়।